আল্লাহ,রাসূল সা. এর দুশমন হৃদয় চন্দ্র সাহা এর ফাঁসি দাবী করল বাংলাদেশ খেলাফত মজলিস

বাংলাদেশ খেলাফত মজলিসের আমীর প্রিন্সিপাল মাওলানা হাবীবুর রহমান ও মহাসচিব মাওলানা মাহফুহজুল হক আজ ০৬ মে এক যুক্ত বিবৃতিতে নরংসিদীর হৃদয় চন্দ্র সাহা আল্লাহ রাসূল সা. এর নামে জঘন্য ও বর্বরোচিত উক্তি লেখে ফেসবুকে শেয়ার করার বিষয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেছেন,আল্লাহ,রাসূল সা. ও ইসলামের দুশমন হৃদয় চন্দ্র সাহাকে গ্রেফতার করলেই তার অপরাধ প্রশমিত হবে না বরং তাকে ফাঁসির কাস্টে ঝুলাতে হবে। আলেম-ওলামা ও ঈমানদার তাওহীদি জনতা বার বার আন্দোলন করে সরকারকে বলে আসছে যারা আল্লাহ,রাসূল সা, ও ইসলামের বিরুদ্ধে কটুক্তি করবে তাদের সর্বোচচ শাস্তি মৃতুদন্ডের বিধান জাতীয় সংসদে পাশ করার জন্য। সর্বোচ্চ শাস্তির বিধান না করার কারণে যার যেমনে মনে চায় তেমনি আল্লাহ রাসূল সা. এর ব্যাপারে মন্তব্য করে এবং মুক্ত চিন্তার নামে ইসলামের বিরুদ্ধে লেখা লেখি করে এদেশের সামপ্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্টের চক্রান্ত করে যাচ্ছে। অথচ সরকার লোক দেখানের নামে এধরণের নাস্তিক মুরতাদদের গ্রেফতার করে জেল খানায় জামাই আদরে রাখছে। সরকারের আচরণে স্পষ্ট হচ্ছে এসরকার নাস্তিক মুরতাদদের পক্ষে। ৯০%মুসলমানের দেশে তারা কী ভাবে সাহস পায় আল্লাহ,রাসূল সা. ও ইসলামের বিরুদ্ধে কথা বলতে ও লেখতে। অবিলম্বে ঈমানদার তাওহীদি জনতার ভাষা বুঝার চেষ্টা করুন এবং আল্লাহ,রাসূল সা. ও ইসলামের বিরুদ্ধে কটুক্তিকারীদের সর্বোচ্চ শাস্তির বিধান জাতীয় সংসদে পাশ করুন। অন্যথায় তাওহিদী জনতা রাজপথে নেমে তাদের দাবী বাস্তবায়ন না হওয়া পর্যন্ত আন্দোলন চালিয়ে যাবে। আল্লাহ এবং রাসূল সা. এর ইজ্জত রক্ষায় বুকের তাজা রক্ত দিতে প্রস্তুত।
নেতৃবৃন্দ আরো বলেন,২০১৩ সালের ৫মে নাস্তিক মুরতাদদের সর্বোচ্চ শাস্তিসহ ১৩ দফার দাবীতে ইমানী চেতনায় উজ্জীবিত হয়ে তাওহীদি জনতা আন্দোলনে নেমে ছিল। সরকার তাওহীদি জনতার দাবির প্রতি ভ্রুক্ষেপ না করে নিজের মসনদকে রক্ষার জন্য আলেম ওলামা ও ঈমানদার তাওহীদি জনতার উপর যে নির্মম বর্বতা নৃশংসতা চালিয়ে শহীদ করেছে এবং আরো অনেককেই করেছে আহত ও পুঙ্গুত্ব যা বাংলাদেশের ইতিহাসে এক জঘন্য ও কালো অধ্যায় হয়ে থাকবে।